সিলেটসহ সারাদেশে খুলছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান: আনন্দে মুখরিত বিভিন্ন কলেজ

0
13

স্টাফ রিপোর্ট: দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর অবশেষে রোববার থেকে সিলেটসহ সারাদেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো খুলেছে। ফলে সকাল থেকেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ছিল প্রাণের উচ্ছ্বাস। বহুদিন পর শিক্ষক-শিক্ষিকা, শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখর হয়ে ওঠে প্রতিষ্ঠানগুলো।

রোববার সকাল থেকে সিলেটের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ঘুরে দেখা যায়, নগরীর মিরের ময়দাস্থ সিলেট বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি কলেজের প্রধান ফটকে শিক্ষার্থীদের লাইনে দাঁড় করিয়ে শারীরিক তাপমাত্রা মেপে ভেতরে প্রবেশ করানো হচ্ছে।

শ্রেণিকক্ষে একেকটি বেঞ্চে একজন করে শিক্ষার্থীকে বসতে দেওয়া হয়। শ্রেণিকক্ষে প্রবেশের আগে শিক্ষার্থীদের জন্য হাত ধোয়ার ব্যবস্থা ছিল। বাধ্যতামূলকভাবে সকল শিক্ষক-শিক্ষার্থীকে মুখে মাস্ক পরতে হয়েছে। এতে এ কলেজের শিক্ষক শিক্ষিকারা ছিলেন খুব আন্তরিক।

একই চিত্র দেখা গেছে, আধুনিক পাঠদানের অন্যন্য প্রতিষ্ঠান খ্যাত মুহিবুর রহমান ফাউন্ডেশনের চারটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সিলেট কমার্স কলেজ,মুহিবুর রহমান একাডেমি,ইডেন গার্ডেন স্কুল এন্ড কলেজ এবং সিলেট বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি কলেজে সরকারের নির্দেশ মোতাবেক বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করে শিক্ষার্থীদের প্রবেশ করে পাঠদান করানো হয়েছে।

শিক্ষকরা জানান, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার ঘোষণা আসার পর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ করা হয়েছে। ধুয়েমুছে সাফ করা হয়েছে সবকিছু। প্রতিষ্ঠান প্রাঙ্গনে ছিটানো হয়েছে জীবাণুনাশক। শিক্ষার্থীদের তাপমাত্রা পরিমাপের জন্য কেনা হয়েছে ইনফ্রারেড থার্মোমিটার।

এবিষয়ে সিলেট বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি কলেজের অধ্যক্ষ মু রহমান বুলবুল বলেন, ‘আমরা যেটা করবো, শিক্ষার্থীদের উৎফুল্ল রেখে, শারীরিক ও মানসিক দিক দিয়ে খেয়াল রেখে বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করবো। যাতে শিক্ষার্থীদের মনোযোগী হয় ক্লাসে।

শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন অনেক দিন পর প্রিয় ক্যাম্পাসে আসতে পেরে অনেক ভালো লেগেছে। ক্লাসে যাওয়ার আগে হাত ধুয়ে ঢুকেছি, মুখে মাস্ক ছিল। ক্লাস করে খুব ভালো লেগেছে। আরো ক্লাস করতে চাই।’

অনেক দিন পর ক্লাসে ফিরতে পেরে আনন্দিত। বন্ধুদের সাথে অনেক দিন পর দেখা হয়েছে, খুব ভালো লাগছে।’

অভিভাবকরা বলছেন মুহিবুর রহমান ফাউন্ডেশনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মানে আলাদা যত্ন করে পাঠদান করানো হয়।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here