সিলেটে ভোক্তা অধিকারের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসকের কাছে অভিযোগ

0
19

নিউজ ডেস্ক:

সিলেটে মিথ্যা অভিযোগের ভিত্তিতে জাতীয় ভোক্তা অধিকার জরিমানা দিয়ে ব্যবসার সুনাম নষ্ট ও হয়রানি করার প্রতিকার চেয়ে সিলেটের জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে বেসরকারী একটি কোম্পানি।

গত ০৭ সেপ্টেম্বর সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার স্বনামধন্য বেসরকারী কোম্পানি মেসার্স কাইফা মসলা প্রোডাক্টস্’র সত্বাধিকারীর পক্ষে কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ আব্দুল আলিম এ অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ পত্রে উল্লেখ করা হয় যে, বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস এন্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন (বি এসটি আই) কতৃক বিগত ০২/০৩/২০২১ ইং তারিখ ৩৬.০৫.০০০০.০১২.৬১.১৩৯.২০ নং স্মারকে সিএম লাইসেন্স নং এস১৫২৮/জি-৬/২১, এস-১৫২৯/জি-৬/২১, এস-১৫৩০/জি-৬/২১ ও এস-১৫৩১/জি-৬/২১ প্রাপ্ত অনুমোদন সাপেক্ষে আমরা অত্যন্ত সুনামের সাথে দীর্ঘদিন ধরে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছি। আমাদের ব্যবসার সাফল্যে ঈর্ষান্বিত হয়ে অন্য প্রতিপক্ষ কোম্পানি আমাদের সুনাম নষ্ট করার জন্য বিভিন্ন রকম ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। কিন্তু আমাদের প্রোডাক্টস গুলির গুণগত মান নিশ্চিত থাকা সত্ত্বেও প্রতিপক্ষ আমাদের ব্যবসার সুনাম নষ্ট করার লক্ষ্যে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে প্ররোচিত ও প্রভাবিত করে বিগত ০৫/০৯/২০২১ ইং তারিখে আমাদের এজেন্ট ব্যবসায়ী ভাই ভাই ষ্টোর, টুকের বাজার সিলেট এ অভিযান পরিচালনা করায়। এ সময় আমাদের মসলার অনুমোদনহীন এবং গুণগত মান সঠিক নয় মর্মে উল্লেখ করে ৮,০০০/-(আট হাজার) টাকার মসলা নষ্ট করেন এবং ৩,০০০/-(তিন হাজার) টাকা নগদ জরিমানা আদায় করেন(অভিযোগ নং-১০২/২১-২২)।

অথচ বার বার আমাদের কাগজ পত্র আমরা দেখাতে চাইলেও ভোক্তা কতৃপক্ষ তাহা কর্ণপাত করেন নাই। আমাদের সকল কাগজ পত্র সঠিক থাকা সত্ত্বেও প্রতিপক্ষ কোম্পানির কারণে আজ আমাদের ব্যবসার সুনাম নষ্ট হয়েছে যা অপূরণীয় ক্ষতি বটে।

কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, দীর্ঘদিন ধরে কোম্পানির সুনাম নষ্ট করার লক্ষ্যে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী বিভিন্ন পন্থা অবলম্বন করে আমাদের বিরুদ্ধে অপপ্রচারনায় লিপ্ত রয়েছে। আমি এর সুষ্ঠ তদন্ত চেয়ে মিথ্যা তথ্য দিয়ে জরিমানা দিয়ে ব্যবসার সুনাম নষ্ট ও হয়রানি থেকে প্রতিকার চেয়ে সিলেটের সম্মানিত জেলা প্রশাসককে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here