স্ত্রীকে ঘরে তালাবদ্ধ রেখে ২য় বিয়ে করতে গেলেন বর!

0
86

নিউজ ডেস্ক:
ছাতকে প্রথম স্ত্রী লাকি বেগমকে ঘরে তালাবদ্ধ রেখে ২য় বিয়ে করতে গিয়ে বিপাকে পড়েন বর চান মিয়া। এক পর্যায়ে প্রশাসনের লোকজন আসছে এমন খবর পেয়ে বর বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার উপজেলার দোলারবাজার ইউনিয়নের জটি গ্রামে। এ ঘটনায় শনিবার উপজেলার সিংচাপইড় ইউনিয়নের বানিকান্দি গ্রামের মৃত কাছির আলীর পুত্র ও লাকি বেগমের পিতা ইসলাম উদ্দিন বাদী হয়ে একই গ্রামের আজিজুর রহমানের পুত্র বর চান মিয়া ও তার মা মনতেরা বিবির বিরুদ্ধে ছাতক থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।


জানা যায়, প্রায় ৩ বছর আগে প্রেমের টানে পিতার ঘর ছেড়ে চান মিয়ার সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয় লাকি বেগম। কনে প্রাপ্ত বয়স না হওয়ায় কোন আনুষ্ঠিানিকতা ছাড়াই পুত্র চান মিয়ার বিয়ে সম্পন্ন করে মনতেরা বিবি। এ বিয়েতে কনের পিতা ইসলাম উদ্দিনের মতামতের কোন তোয়াক্কা করা হয়নি বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। গত বছরের ১৬ সেপ্টেম্বর পারিবারিক কলহের জের ধরে লাকি বেগমকে মারধোর করে তার একমাত্র পুত্র ইদ্রিছ আলী(০১) রেখে তাকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয় স্বামী ও শাশুরী। এর পর থেকে লাকি বেগম পিত্রালয়েই অবস্থান করছিল। এরই মধ্যে স্বামীর ২য় বিয়ের খবর পেয়ে ২ এপ্রিল সকালে স্বামীর বাড়িতে উপস্থিত হয় লাকি বেগম। এসময় স্বামী চান মিয়াকে বর সাজে সজ্জিত দেখে স্বামীর সাথে বাক-বিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে সে। এসময় লাকি বেগমকে জোরপূর্বক একটি কক্ষে তালা বদ্ধ করে রেখে ২য় বিয়ে করতে দোলারবাজার ইউনিয়নের জটি নোয়াগাঁও গ্রামে রওয়ানা দেয় বর চান মিয়া।

বিষয়টি দ্রুত জানা জানি হলে প্রশাসনের নির্দেশনায় সিংচাপইড় ইউপি চেয়ারম্যান মোজাহিদ আলী ও দোলারবাজার ইউপি চেয়ারম্যান সায়েস্থা মিয়া ঘটনাস্থলে পৌছে বিয়ে বন্ধ করতে কনে পক্ষকে অনুরোধ করেন। কনে পক্ষ বিষয়টি জেনে বিয়ে না দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। এদিকে কনের বাড়িতে বর সেজে বসা চান মিয়া বিয়ে সম্পন্ন হওয়ার অপেক্ষায় প্রহর গুনতে থাকে। এক পর্যায়ে প্রশাসনের লোকজন আসছে এমন খবর পেয়ে বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে চম্পট দেয় বর চান মিয়া।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here