কোম্পানীগঞ্জে বেড়েছে চোরদের উৎপাত, জনমনে আতঙ্ক

0
63

নিউজ ডেস্ক:
সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় চুরি বেড়ে যাওয়ায় ব্যবসায়ী ও এলাকার জনমনে আতঙ্ক বিরাজ করেছে। উপজেলা জুড়ে গত কয়েক মাসে বেশ কয়েকটি দুঃসাহসিক চুরির ঘটনা ও চোরদের উৎপাত বেড়ে যাওয়ায় মানুষ অজানা ভয়-ভীতিতে রাত কাটাচ্ছে।

চুরির মালপত্রের ভাগাভাগি নিয়ে মনোমালিন্য হওয়ায় গত ৩১ জানুয়ারি হৃদয় নামের এক চোরকে খুন করে সহযোগীরা ধলাই নদীতে ফেলে দেয়। সর্বশেষ গত ৫ মার্চ দিবাগত রাতে উপজেলার ঢালারপাড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চুরি সংগঠিত হয়েছে। এতে স্কুলের অফিসে রাখা আলমিরা ভেঙ্গে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্ট নিয়ে যায় চুরেরা।

স্কুলের সভাপতি এডভোকেট ইসরাফিল আলী জানায়, শনিবার সকালে স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা শিরিন আক্তার এসে দেখতে পান স্কুলের অফিস রুমের তালা ভাঙ্গা। তারপর তিনি আমাকে ফোন দিয়ে জানালে স্থানীয় মুরব্বিদের নিয়ে এসে দেখি স্কুলের স্টিল আলমারির লক, অনেক কাগজপত্র এলোমেলো করে রেখে যায় দুর্বৃত্তরা। জরুরী কোন কিছু না পেয়ে একটি প্রজেক্টর নিয়ে যায় চুরেরা। এই ঘটনায় ঢালারপাড় এলাকা জুড়ে চুরির আতঙ্ক বিরাজ করছে।

এদিকে উপজেলার সাকেরা পয়েন্ট, ভোলাগঞ্জ, গুচ্ছগ্রাম, কলাবাড়ী এলাকায় অবস্থিত পাথর ভাঙ্গার ক্রাশার মিলে চোরদের উৎপাতে অতিষ্ঠ পাথর ব্যবসায়ী ও শ্রমিকেরা। মিনি ক্রাশার মিলের ম্যানেজার ইউনুস এর সাথে কথা বলে জানা যায়, শাহ আরফিন ও ভোলাগঞ্জ পাথর কোয়ারি বন্ধ থাকায় ক্রাশার মিল এলাকায় মানুষের চলাচল কম থাকায় মালমাল চুরি ও চোরদের উৎপাত বেড়েই চলছে। তাদের চুরির ভয়ে ও যন্ত্রণায় অনেক ক্রাশার মিল মালিক মূল্যবান জিনিসপত্র ও যন্ত্রাংশ অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে গেছে।

রফিক ওয়াশিংপ্লানের চৌকিদার ইমান উদ্দিন, বলেন কয়েক মাস যাবত চুরির ঘটনা চোরদের উৎপাত এলাকায় বেড়েই চলছে। এলাকায় রাতে পুলিশ প্রশাসনের ভূমিকা কম থাকায় চুরি বৃদ্ধি পেয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

ইসলামীয়া স্টোন ক্রাশারের মালিক রাকিব আল হাসান জানান, গত মাসে আমার মিল থেকে দিনে দুপুরে ১৫ হাজার টাকা মূল্যের বারোগোরা একটি সেলুমমেশিন চুরি হয়েছে। ছোট বড় এরকম চুরি প্রায় হচ্ছে। এসব চুরির ঘটনায় ব্যবসায়ীরা আতঙ্ক আছে বলে জানান তিনি।

উপজেলার তেলিখাল ইউনিয়নের নুরুজ্জামান জানান, কিছু দিন আগে আমার বাড়ীর ঘাট থেকে এক লাখ টাকা মূল্যের একটি ইঞ্জিন চালিত নৌকা চুরি হয়। অনেক খোঁজাখুঁজি করার পরেও নৌকাটি পাওয়া যায়নি। নৌকা চুরি হওয়ার পর থেকে আয় না থাকায় পরিবার নিয়ে অনেক কষ্টে দিন কাটাচ্ছি।

ইসলামপুর পশ্চিম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন বলেন, কিছুদিন আগে আব্দুর নূর নামে এক ব্যবসায়ীর কাছে নগদ অর্থ ছিনিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। চুরি, ছিনতাই সহ সকল ধরনের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড বন্ধে পুলিশ প্রশাসনের ভূমিকা আরো জোরদার করতে হবে এবং ব্যবসায়ীদের সতর্ক থেকে ব্যবসা বাণিজ্য পরিচালনা করার অনুরোধ করেন।

এসব বিষয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি কেএম নজরুল ইসলাম জানান, উপজেলার, চুরি, ডাকাতি সহ কোম্পানীগঞ্জ থানা এলাকার আইন শৃঙ্খলা রক্ষা করতে কাজ করে যাচ্ছে পুলিশ। তবে ক্রাশার মিল মালিকেরা যদি তাদের মালামাল নিজ দায়িত্বে না রাখে আমাদের কিছু করার নেই বলে জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here