রাত পোহালেই নরসিংদী ও মাধবদী পৌরসভায় ভোটের লড়াই

0
140

দৈনিকসত্যপ্রকাশ ডেস্ক:
রাত পোহালেই চতুর্থ ধাপে রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে নরসিংদী ও মাধবদী পৌরসভায় নির্বাচনের ভোটের লড়াই।

এদিন সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত টানা ভোট গ্রহণ চলবে। এ জন্য সব প্রস্তুতি শেষ করেছে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচনী পরিবেশ নিয়ন্ত্রণে মাঠে রয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

নির্বাচনে ভোট গ্রহণের ইভিএম ও নির্বাচনী সরঞ্জাম কেন্দ্রে কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। শনিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ২টা থেকে দুই রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে এসব নির্বাচনি সরঞ্জাম ও ইভিএম পাঠানো শুরু হয়।

প্রিজাইডিং অফিসারসহ সংশ্লিষ্ট দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা দুই পৌরসভার মোট ৫৫টি কেন্দ্রে এসব সরঞ্জাম ও ইভিএম নিয়েছেন।

নরসিংদী পৌরসভার প্রতিটি কেন্দ্রে আজ নির্বাচনী সরঞ্জাম পাঠানো শুরু হলেও ব্যালট পৌঁছানো হবে ভোটের দিন সকালে।
অপরদিকে মাধবদী পৌরসভায় এই প্রথম ইভিএম এ ভোট গ্রহণ হবে। সে লক্ষে ইভিএম পাঠানো হয়েছে।

এবার নরসিংদী পৌরসভায় প্রতিদ্বন্দ্ধিতা করছেন, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী আমজাদ হোসেন বাচ্চু (প্রতীক নৌকা), বিএনপির মনোনীত প্রার্থী হারুন অর রশিদ (ধানের শীষ), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ’র আসাদুল হক হামিদ (হাত পাখা) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক ছাত্রলীগ নেতা এস. এম কাইয়ুম (প্রতিক মোবাইল ফোন)। এ চার মেয়র প্রার্থীসহ ৪৩ জন কাউন্সিলর এবং ১০ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী।

এখানে মোট ভোটার ৯৯ হাজার ৪৫৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৪৯ হাজার ১৫৭ জন ও নারী ৫০ হাজার ২৯৭ জন।
নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার কমল কুমার ঘোষ জানান, সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য সকল ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন নির্বাচন কমিশন। ভোট কেন্দ্রেগুলোতে ব্যালট পেপার ছাড়া অন্য সকল ধরনের সরঞ্জামাদি পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। আজ সকালে ভোটগ্রহনের আগে কেন্দ্রে কেন্দ্রে ব্যালট পেপার পৌঁছে দেওয়া হবে।

নির্বাচনে ভোট গ্রহণে ৪০টি কেন্দ্রে ৪০ জন প্রিজাইডিং কর্মকর্তা, ২৭৮ জন সহকারী প্রিজাইডিং কর্মকর্তা ও ৫৫৬ জন পোলিং কর্মকর্তা দায়িত্ব পালন করবেন।

এছাড়া সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করতে ৪০টি কেন্দ্রে দায়িত্ব পালন করবেন, ১৮ জন নির্বাহী ও একজন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট। ১২টি গাড়িতে টহলে থাকবে ৭২ জন র‌্যাব সদস্য। টহলে থাকবে ১৫০ জন বিজিবি সদস্যও।

এদিকে প্রতি কেন্দ্রে থাকবে পুলিশের ৭ জন সদস্য ও ৯ জন আনসার সদস্য। প্রতি দুটি কেন্দ্রে কাজ করবে পুলিশের একটি মোবাইল টিম। প্রতি ৪ থেকে ৫টি কেন্দ্র নিয়ে দায়িত্বে থাকবে পুলিশের উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন একটি স্ট্রাইকিং ফোর্স।

অপরদিকে মাধবদী পৌরসভায় এবারই প্রথম ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট হবে। এ নির্বাচনে ১৫টি কেন্দ্রের ১০২টি কক্ষে ইভিএম এ ভোট গ্রহণের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন নির্বাচন কমিশন।

এ পৌরসভায় মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্ধিতা করছেন- ক্ষমতাশীন দল আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান মেয়র মোশাররফ হোসেন প্রধান মানিক (প্রতিক নৌকা), বিএনপি দলীয় মনোনীত প্রার্থী আনোয়ার হোসেন আনু (ধানের শীষ), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ’র মনির হোসেন শামীম (হাত পাখা) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ফরিদা ইয়াছমিন (প্রতিক মোবাইল ফোন)। এ চার মেয়র প্রার্থীসহ ৩৪ জন কাউন্সিলর ও ১১ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী।

এখানে মোট ভোটার ৩২ হাজার ৪৮৩ জন। এরমধ্যে পুরুষ ১৭ হাজার ১৬৫ জন ও নারী ১৫ হাজার ৩১৮ জন।

রিটানিং কর্মকর্তা মেজবাহ উদ্দিন জানান, সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য সকল ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। ভোট কেন্দ্রেগুলোতে ইভিএম ইউনিটসহ সকল ধরনের সরঞ্জামাদি পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। নির্বাচনে ভোট গ্রহণ করতে ১৫ জন প্রিজাইডিং কর্মকর্তা, ১০২ জন সহকারি প্রিজাইডিং কর্মকর্তা ও ২০৪ জন পোলিং কর্মকর্তা দায়িত্ব পালন করবেন।

এছাড়া নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে প্রতি কেন্দ্রে পুলিশের ৭ জন ও ৮ জন আনসার সদস্য থাকবেন। পুলিশের ৮টি মোবাইল টিম কাজ করবেন। কাজ করবেন ২টি পুলিশের উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন একটি স্ট্রাইকিং ফোর্সও। নির্বাচনি এলাকায় টহলরত থাকবে ৩ প্লাটুন র‌্যাব ও ৩ প্লাটুন বিজিবি সদস্য।

এদিকে সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার লক্ষে নিয়োজিত ফোর্সকে প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা প্রদানে ১২টি কেন্দ্রে ১২ জন নির্বাহী ও একজন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here