ঈদের আগের দিন সিলেটের সড়কে ঝরলো ৮ প্রাণ

0
7

নিউজ ডেস্ক: ঈদ মৌসুমে রাস্তা ফাঁকা থাকে। চালকরা বেপরোয়া গদিতে গাড়ি চালানো শুরু করেন। ফলে প্রতিবারই এরকম সময়ে বেড়ে যায় সড়ক দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি। তবে এবার ঈদের আগেরদিনই সিলেটেরর সড়কে প্রাণ হারালেন ৮ জন।

শুক্রবার (৩১ জুলাই) দুটি পৃথক দুর্ঘটনায় এ আট জনের প্রাণহানি ঘটে। এরমধ্যে একই পরিবারের ৫ সদস্য রয়েছেন। নিহতদের সকলে ঈদের ছুটিতে বাড়ি ফিরছিলেন।

শুক্রবার সকালে সিলেটের ওসমানীনগরে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে প্রাইভেটকারের সংঘর্ষে পাঁচজন নিহত হন।

নিহতরা হলেন- সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার শ্যামারচর গ্রামের স্বপন কুমার দাস, তার স্ত্রী লাভলী রানী দাস, তাদের দুই সন্তান সৌমিত্র ও শৈবাল এবং প্রাইভেটকার চালক। এই দম্পতির বড় ছেলে সৌরভকে গুরুতর আহত অবস্থায় সিলেট এম.এ.জি ওসমানী হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা যায়, স্বপন কুমার দাশ কাজ করতেন বেসরকারি সংস্থা ব্রাকে। তার কর্মস্থল মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গলে। করোনা ভাইরাসের কারণে গত ঈদের ছুটিতে বাড়ি যাওয়া হয়নি তাদের। এবার ঈদে প্রাইভেটকার নিয়ে সপরিবারে বাড়ি ফিরছিলেন। সকালে ওসমানীনগর এলাকায় ঢাকাগামী কুমিল্লা ট্রান্সপোর্টের একটি বাস তাদের প্রাইভেটকারটিকে চাপা দেয়। ঘটনাস্থলেই মারা যান চালকসহ পাঁচজন। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা সৌরভকে জীবিত উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। তবে তার অবস্থা শংকটাপন্ন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

এদিকে, হবিগঞ্জের বাহুবলে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে বাসের-সাথে প্রাইভেটকারের ধাক্কায় ২ নারীসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। নিহতরা সকলে প্রাইভেটকারের যাত্রী ও চালক।

শুক্রবার (৩১ জুলাই) সকালে বাহুবলের আব্দানারায়ন এলাকায় মহাসড়কে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতদের মধ্যে দু’জন নারী গার্মেন্টসকর্মী। তারা হলেন- সুনামগঞ্জ জেলার বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার দশঘর গ্রামের রুহেল মিয়ার স্ত্রী শাহিদা খাতুন (৩৫) এবং ফিরোজ মিয়ার মেয়ে মালেহা খাতুন (৩৫)। তবে অপর নিহত প্রাইভেটকার চালকের পরিচয় জানা যায়নি।

শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তৌফিকুল ইসলাম তৌফিক জানান, প্রাইভেটকারযোগে দুই নারী গার্মেন্টসকর্মী ঢাকা থেকে সিলেটের দিকে যাচ্ছিলেন। যাত্রা পথে আব্দানারায়ন এলাকায় বিপরীতমুখী একটি বাস কারটিকে ধাক্কা দিলে তিনজন প্রাণ হারা।

বাহুবল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান জানিয়েছেন, নিহতরা সম্ভবত সুনামগঞ্জের দিকে যাচ্ছিলেন। তাদের পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে। মরদেহগুলো শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানায় পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here