৩ মাসে পবিত্র কুরআন হিফজ করল দারুন নাশাতের শিক্ষার্থী মুহাম্মদ ইয়ামিন

0
135
darul nasat news

বানিয়াচং থেকে আক্তার হোসেন আলহাদী:
হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে আলোরণ সৃষ্টিকারী শিক্ষা প্রতিষ্টান “দারুন নাশাত” এর ছাত্র মুহাম্মদ ইয়ামিন হুসেন ৩ মাসে ও চলতি বছর আরো ৩ ছাত্র, হাসিব খাঁ, আব্দুল কাদের মুন্না ও আরাফাত হোসেন মাহদীকে পবিত্র কোরআন হিফ্জ সমাপন উপলক্ষে সংবর্ধনা দিয়েছে বানিয়াচং দারুন নাশাত।

বুধবার সকাল ৯ টায় দারুন নাশাতের পরিচালক মাওলানা আব্দুল হালিম নোমানি আল-আজহারী’র সঞ্চালণায় আয়োজিত সংবর্ধনা সভায় সভাপতিত্ব করেন মাওলানা আব্দুল বাসিত আজাদ।
প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, মাওলানা মোহাম্মাদ হেমায়েত উদ্দিন ।
প্রতিষ্ঠানের পক্ষথেকে অভিবাকদের উদ্দেশ্য দিক-নির্দেশনা মূলক বক্তব্য রাখেন দারুন নাশাতের পরিচালক, মুফতি মোঃ হামিদুর রহমার চৌধুরী ।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন মাওলানা মুখলিছুর রহমান, কাজি আতাউর রহমান, মাওলানা ইকবাল হোসাইন, মাওলানা সিরাজুর ইসলাম, এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক আক্তার হোসেন আলহাদী, হৃদয় খান, শেখ সজিব, ক্বারী কমর উদ্দিন, মাওলানা নজরুল ইসলামসহ, অভিভাবক, শিক্ষক, এবং বিভিন্ন শ্রেণিপেশার ব্যক্তিবর্গ।
প্রতিষ্ঠানের পক্ষথেকে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে কৃতি শিক্ষার্থীদের মধ্যে নগদ অর্থসহ বিভিন্ন পুরস্কার দেওয়া হয়। এর মধ্যে মাত্র ৩ মাসে পবিত্র কোরআন হিফ্জ সমাপন করায় দিন-মজুর মো: জাহেদ মিয়ার ছেলে মুহাম্মদ ইয়ামিন হুসেনকে দারুন নাশাতের পরিচালক মুফতি যুনাইদ আহমদ এর পক্ষ থেকে একটি বাইসাইকেল ও তার মাকে একটি সেলাই মেশিন এবং প্রতিষ্ঠানের পক্ষথেকে নগদ ১০ হাজার টাকা, এবং হিফজ সমাপন কারী ছত্র হাসিব খাঁ’কে একটি বাইসাইকেল নগদ অর্থ ও তাদের মাতা ও পিতাকে বিভিন্ন উপহার প্রদান করা হয়।

উপহারের মধ্যে ছিল দুটি বাইসাইকেল, ১টি সেলাই মেশিন,১টি ডিনারসেট, পাঞ্জাবী কাপরসহ বিভিন্ন সামগ্রী।

একের পর এক কৃতি ছাত্র উপহার, ইংরেজি, আরবি ও বাংলায় পাঠদান এবং আন্তর্জাতিক হাফেজ এবং ক্বারীদের সংবর্ধনা প্রদান এর মধ্যে দিয়ে বানিয়াচং তথা হবিগঞ্জের অন্যতম এক বিদ্যাপীটে উন্নীত হয়েছে ‘দারুন নাশাত‘। যা সকল শ্রেণিপেশার মানুষের মধ্যে এ প্রতিষ্ঠান দিয়ে ব্যাপক আস্থা এবং আগ্রহ সৃষ্টি হয়েছে।

২০১৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়ে মাত্র ৪বছরে অনেক কৃতি শিক্ষার্থী উপহার দিয়েছে, তার মধ্যে উল্লেখ্য যে ২০১৯ সালে মাত্র ৮ মাসে মোসাদ্দেক আহমেদ, ২০২০ সালে মাত্র ৬ মাসে মোঃ জুলকার নাইন রিমন ও আয়ুব আলী ও ২০২১ সালের শুরুতে মাত্র ৫ মাসে ফারিহা আক্তার এবং মাত্র ৩ মাসে মোহাম্মদ ইয়ামিন হোসেন, হাসিব খাঁ, আব্দুল কাদের মুন্না ও আরাফাত হোসেন কৃতিত্বের সাথে হিফ্জ সামাপন করেন।