সৌরভ-কোহলিদের যা বললেন কপিল দেব

0
71

স্পোর্টস ডেস্ক:
ভারতীয় ক্রিকেটে গৃহদাহ বেশ প্রকাশ্য রূপ ধারণ করেছে। বিরাট কোহলিকে অধিনায়কত্ব থেকে সরিয়ে দেয়া, রোহিত শর্মাকে নেতৃত্বে নিয়ে আসা, এ সব বিষয় নিয়ে বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলির বক্তব্য এবং প্রকাশ্য সংবাদ সম্মেলনে বিরাট কোহলির অস্বীকার- সব মিলিয়ে একটা ঘোলাটে পরিস্থিতি তৈরি করেছে ভারতীয় ক্রিকেটে।

এসব কিছু সত্ত্বেও বিরাট কোহলি এবং রোহিত শর্মারা এখন সফর করছেন দক্ষিণ আফ্রিকা। গতকালই তারা জোহানেসবার্গে পৌঁছে গেছেন।

কিন্তু গৃহদাহের আগুন যেভাবে প্রজ্জ্বলিত হয়েছে, তাতে সব ঘরই না পুড়ে ছাই হয়ে যায়! সে শঙ্কাই করছেন বিশ্বকাপজয়ী সাবেক অধিনায়ক কপিল দেব। তিনি খেলোয়াড় এবং বোর্ড কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন, কাদা ছোড়াছুড়ি বন্ধ করে খেলায় মনযোগ দেয়ার জন্য।

সৌরভ গাঙ্গুলির কথার জবাব দিতে গিয়ে বুধবার বিরাট কোহলি সাংবাদিকদের প্রকাশ্যে এসে জানিয়েছেন, তাকে টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক হিসেবে থেকে যেতে কেউ বলেনি। অর্থ্যাৎ, তার অধিনায়কত্ব নিয়ে ভারতীয় বোর্ড বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলি যে বক্তব্য দিয়েছিলেন, কোহলির দাবি অনুসারে সেটা মিথ্যা।

এমনকি ভারতীয় টেস্ট দলের অধিনায়ক এও জানিয়েছেন, দল ঘোষণার মাত্র দেড় ঘণ্টা আগে কোনও ব্যাখ্যা ছাড়াই বিরাটকে জানানো হয় তাকে আর ওয়ানডে দলের অধিনায়ক হিসেবে রাখা হচ্ছে না। অথচ, বিসিসিআইয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, তারা ৪৮ ঘণ্টা অপেক্ষা করেছিল বিরাটের বক্তব্য জানার জন্য। এরপর যখন কোনো বক্তব্য আসেনি বিরাটের পক্ষ থেকে, তখন তারা নতুন অধিনায়ক হিসেবে রোহিতের নাম ঘোষণা করে।

বুধবার বিরাট কোহলি সংবাদ মাধ্যমে নিজের প্রতিক্রিয়া জানোর পর থেকেই উত্তাল ভারতীয় ক্রিকেট। কোহলির বক্তব্যের পর বিসিসিআই কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে একের পর এক টুইট আসতে থাকে। সমালোচনায়মুখর হয়ে ওঠে পুরো ভারতের ক্রিকেটাঙ্গন।
সবাই সত্য জানতে চান। বিরাট নির্দ্বিধায় নিজের বক্তব্য রেখেছেন। কিন্তু ভারতীয় বোর্ড এখনও তাদের জবাব দেয়নি। ভারতের বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক কপিল দেব এই পরিস্থিতিতে ক্ষুব্ধ। তিনি মনে করেন, প্রকাশ্যে এ ধরনের মন্তব্য না করলেই পারতেন বিরাট ও সৌরভ। তাছাড়া আসন্ন দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ হওয়ার আগে এ ধরনের ঘটনা ক্রিকেটারদের মনোবল নষ্ট করে দিতে পারে বলেই মনে করেন কপিল।

বৃহস্পতিবার ভারতীয় গণমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে কপিল বলেছেন, ‘প্রকাশ্যে কারও উপর আঙুল তোলা উচিত নয়। এ পরিস্থিতিতে তো একেবারেই নয়। সামনে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে সিরিজ শুরু হতে যাচ্ছে। সেটা নিয়েই ভাবনা-চিন্তা করা হোক।’

তিনি আরও বলেন, ‘বোর্ড প্রেসিডেন্টকে যেমন সবাই সম্মান করে, ঠিক ততটাই মর্যাদা রয়েছে ভারতীয় অধিনায়কের। সৌরভ ও কোহলি যে একে অন্যের নামে প্রকাশ্যে মন্তব্য করে চলেছে, এটা একেবারেই ঠিক নয়। ভারতীয় ক্রিকেটের ক্ষতি হতেই পারে এতে করে।’