সেহরিতে যা খাবেন, যা খাবেন না

0
76

ইসলাম ডেস্ক: 

চলে এসেছে পবিত্র রমজান। মুসলমানরা এই মাসে আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনে সুবহে সাদিক থেকে মাগরিব পর্যন্ত সকল প্রকার পানাহার থেকে বিরত থাকেন। সারাদিন রোজা রাখতে হবে, এজন্য অনেকেই সেহরিতে বেশি বেশি খান। যা স্বাস্থ্যের জন্য মোটেও ভালো নয়।

পুষ্টিবিদদরা মনে করেন, সেহরিতে এমন খাবার খাওয়া উচিত যা দীর্ঘ সময় পেট ভরা রাখবে। সারাদিন পুষ্টি জোগাবে এমন খাবার রাখা উচিত খাদ্যতালিকায়। সেহরিতে কী কী খাওয়া উচিত? কোন খাবারগুলো এড়িয়ে চলা দরকার। সে সম্পর্কে জেনে নিন।

রাতের খাবার
অনেকে ইফতার করার পর সেহরির আগে রাতের খাবার খান। ইফতারের তিন থেকে সাড়ে তিন ঘণ্টার মধ্যে এই কাজটি শেষ করুন। এসময় খেতে পারেন ভাত, সবজি, ডাল, মাছ বা মাংস। সবজি খেতে চেষ্টা করবেন। সবজি সহজে হজম হয়। আঁশযুক্ত খাবার বেশি খাবেন।

সেহরিতে যা খাবেন
একদম শেষ সময়ে সেহরি খাওয়া থেকে বিরত থাকুন। সেহরির সময় শেষ হওয়ার এক ঘণ্টা আগে খাবার খান। খাবারের তালিকায় রাখুন ভাত, ডাল, মাছ বা মাংস। খাবার শেষে খেতে পারেন মিষ্টি জাতীয় কোনো খাবার।

সেহরিতে খেতে পারেন ফাইবারযুক্ত ফল। শস্য জাতীয় খাবার বেশি সময় পেট ভরা রাখে। তাই বার্লি, ওটস, ছোলার মতো শস্য খেতে পারেন সেহরিতে। যদিও এই খাবারগুলো পানির পিপাসা অনেক বাড়িয়ে দেয়।

খাবার শেষ করে কিছুক্ষণ হাঁটুন। এরপর পানি পান করুন। সেহরির শেষ সময়ে এক গ্লাস পানিতে এক চামচ গ্লুকোজ মিশিয়ে পান করতে পারেন। এই পানীয় বাড়তি শক্তি জোগাবে। তবে ডায়াবেটিস থাকলে এটি এড়িয়ে যেতে হবে।

সেহরিতে যা খাবেন না
সেহরিতে অতিরিক্ত মসলাদার ও ঝাল খাবার খাবেন না। এতে বুক জ্বালাপোড়া ও হজমের সমস্যা হতে পারে। কম তেলে রান্নার চেষ্টা করুন। রেড মিট বাদ দিন খাবার তালিকা থেকে। তার বদলে খেতে পারেন মুরগির মাংস।

চা বা কফি পানের অভ্যাস থাকলে সেহরিতে তা বাদ দিন। এসব পানীয় দেহে পানিশূন্যতার সৃষ্টি করে। সেহেরিতে অতিরিক্ত মিষ্টিজাতীয় খাবার না খাওয়াই ভালো। এসব খাবার দ্রুত হজম হয়ে যায়। ফলে ক্ষুধা অনুভূত হয় তাড়াতাড়ি।

এসবের পাশাপাশি রমজানে ঘুমের রুটিনে পরিবর্তন আনুন। হাতে সময় নিয়ে ধীরেসুস্থে সেহেরি খাওয়ার চেষ্টা করুন