সিলেটে সড়ক কাঁপিয়ে নাচ-গান ওয়ালাদের বিরুদ্ধে অ্যাকশনে পুলিশ

0
23

নিউজ ডেস্ক:
ঈদ উপলক্ষে গত কয়েকদিন ধরে সিলেটের পর্যটন স্পগুলোতে প্রতিদিনই সমাগম ঘটছে লাখো পর্যটক ও প্রকৃতিপ্রেমীর। তবে ঈদ আনন্দের নামে প্রায়ই রাস্তা কাঁপিয়ে ট্রাক বা পিকআপে চড়ে কিছু উশৃঙ্খল যুবককে লাউড স্পিকারে উচ্চস্বরে গান বাজিয়ে এর তালে তালে উদ্যম নাচ করে ছুটতে দেখা যায়।

ঈদের পরদিন থেকে সিলেটের বিভিন্ন রাস্তায় দেখা গেছে এমন দৃশ্য। বিশেষ করে সিলেট-ভোলাগঞ্জ ও সিলেট-জাফলং সড়কে উশৃঙ্খল যুবকরা এমন কাণ্ড ঘটাচ্ছেন বেশি।

বিষয়টি পুলিশের নজরে আসার পরপরই অ্যকশনে নামে পুলিশ। এমন ট্রাক বা পিকআপ যেখানেই পাচ্ছে, সেখানেই গাড়ি থামিয়ে এসব উশৃঙ্খল যুবককে পুলিশ ফিরিয়ে দিচ্ছে।

গত কয়েকদিন ধরে দেখা যাচ্ছে, ঈদ আনন্দের নামে সিলেটের বিভিন্ন রাস্তায় উশৃঙ্খল তরুণ-যুবকদের ‘ডিজে ট্রাক’র দৌরাত্ম্য বেড়েছে। ট্রাক বা পিকআপে মাইক বেঁধে উচ্চ স্বরে হিন্দি গান বাজিয়ে তরুণ-যুবকরা গানের তালে তালে নাচছে আর ফুর্তি করছে। অনেক সময় তাদের হাতে থাকে রং। রাস্তায় চলাচলরত গাড়িতে ও মানুষের শরীরে রং ছিটিয়ে দেয় তারা। মহিলা কিংবা তরুণী দেখলেই উৎপাত বাড়ে বেশি।

তবে এমন ট্রাক বা পিকআপ দেখলেই এখন পুলিশ আটকে দিচ্ছে। থামাচ্ছে উশৃঙ্খল যুবক-তরুণদের। সিলেট-তামাবিল সড়কের বটেশ্বরে দেখা যায় এমন দৃশ্য।

তবে শুধু বটেশ্বর এলাকায়ই নয়, সিলেট-তামাবিল সড়কের হরিপুর, দরবস্ত, জৈন্তাপুর বাজার ও চার নম্বর এলাকায় এভাবে ‘ডিজে ট্রাক’ দেখলেই অ্যাকশনে যাচ্ছে পুলিশ।

এ বিষয়ে সিলেট জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) লুৎফর রহমান বলেন, এসব উচ্ছৃঙ্খল যুবক-তরুণদের ঠেকাতে পুলিশ সক্রিয় ভূমিকা পালন করছে। গত ৩-৪ দিনে এমন বেশ কয়েকটি ট্রাক আটক করা হয়েছে। এছাড়া হাইওয়ে পুলিশ জেলা পুলিশের সহযোগিতা নিয়ে রাস্তায় টহল দিচ্ছে।

তিনি বলেন, পুলিশ তৎপর হওয়ায় পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক। আজ এবং কাল এমন উশৃঙ্খল যুবকদের খুব একটা রাস্তায় দেখা যায়নি।