ভারতের কারাগারে মৌলভীবাজারের ২ সহোদর; পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সহযোগিতা কামনা

0
79

নিউজ ডেস্ক:
করোনা মহামারীর কারণে বেকার হয়ে পড়া ২ ভাই কাজের সন্ধানে ভারত গিয়ে ৬ মাস ধরে ভারতের কৈলাশহর জেলহাজতে দিনাতিপাত করছেন।

এদিকে আয় রোজগার করা প্রধান ২ জন না থাকায় অভাব অনটনে দিন কাটছে ওই পরিবারের স্বজনদের। আর্থিক স্বচ্ছলতা না থাকায় ভারতের কারাগারে আটকে থাকা ২ ভাইকে দেশে ফিরিয়ে আনতে পারছেন না দরিদ্র পিতামাতা। তাদের ফিরিয়ে আনতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীসহ সরকারের উর্ধ্বতন মহলের সহযোগিতা কামনা করেছেন।
ভারতের কৈলাশহর কারাগারে থাকা ২ ভাই হলেন মৌলভীবাজারের ৪ নং আপার কাগাবলা ইউনিয়নের সাতবাক গ্রামের আবরুছ আলী ও এলিজা বেগম দম্পতির ছেলে শাহান আলী (৩০) ও শাহ আহমদ (৪০)।
ভারতের কারাগারে থাকা সহোদরদের পিতা আবরুছ আলী জানান, বড় ছেলে শাহ আহমদ দিনমজুরের কাজ করে। আর অপর ছেলে শাহান আলী কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের মাস্টার্সের ছাত্র। করোনার কারণে কর্মহীন হওয়ায় তার ছেলে শাহ আহমদ আ শাহান আলী সীমান্ত এলাকায় কাজের খেঁাজে গত এপ্রিল মাসে বাড়ি থেকে বের হয়।
পরবর্তীতে তারা জানতে পারেন কাজের সন্ধানে ভারত গিয়ে পুলিশের হাতে আটক হয়ে
কৈলাশহর কারাগারে বন্দি রয়েছে ২ ভাই। সংসারের প্রধান ২ রোজগারী ছেলে ভারতে বন্দি থাকায় নিদারুন কষ্টে দিনাতিপাত করতে হচ্ছে পরিবার নিয়ে। শাহ আহমদের ২ সন্তান রয়েছে। এছাড়া শাহান আলী প্রাইভেট পড়িয়ে সংসারের খরচের যোগান দিতো। বাড়ি থেকে কাজের উদ্দ্যেশে বের হওয়ার পর থেকে তাদের খেঁাজ পাচ্ছিলেন না।
পরবর্তীতে বিজিবি সদস্যরা তাদের বাড়িতে এসে খেঁাজ নিলে ছেলেরা ভারতের
কারাগারে বন্দি বলে জানতে পারি। এছাড়া এসপি অফিস থেকেও এ ব্যাপারে যোগাযোগ করেছে।
তিনি আরো বলেন, কর্মক্ষম ২ ছেলে ভারতের কারাগারে বন্দি থাকায় তাদের ফিরিয়ে আনা যাচ্ছে না। আর্থিক অসংগতির কারণে কোনো ধরণের পদক্ষেপ নেওয়া যাচ্ছে না। তিনি ভারতের কারাগারে থাকা তার ২ ছেলেকে দেশে ফিরিয়ে আনতে সরকারের সহযোগিতা চান।

মৌলভীবাজার থানার ওসি ইয়াসিনুল হক বলেন, এ ঘটনা আমার জানা নেই। পরিবারের সদস্যরা কোনো ধরণের সহযোগিতা চাইলে আইনানুগ সকল সহযোগিতা করা হবে।