পুলিশের নির্যাতনে মৃত্যু: এসআই দেবাশীষকে বদলি

0
25

নিউজ ডেস্ক:
সুনামগঞ্জের শান্তিগঞ্জে পুলিশের নির্যাতনে উজির মিয়ার (৪০) মৃত্যুর অভিযোগ ওঠার পর পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) দেবাশীষ সূত্রধরকে বদলি করা হয়েছে। বুধবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে তাকে শান্তিগঞ্জ থানা থেকে দিরাই থানায় বদলি করা হয়।

বদলির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) আবু সাঈদ।

এর আগে উজির মিয়ার মৃত্যুর পর তার পরিবার দেবাশীষ সূত্রধরসহ শান্তিগঞ্জ থানার কয়েকজন পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ করে আসছিল উজির মিয়ার পরিবার।

গত সোমবার (২১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে শান্তিগঞ্জের শত্রুমর্দন (বাঘেরকোনা) গ্রামের বাসিন্দা উজির মিয়া মারা যান। পুলিশের নির্যাতনে তার মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ করে তার পরিবার। এতে পুলিশ সদস্যদের আইনের আওতায় আনার দাবিতে ওই দিন দুপুরে উপজেলার পাগলা বাজার এলাকায় মরদেহ নিয়ে সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন উজির মিয়ার স্বজন ও এলাকাবাসী।

দীর্ঘ তিন ঘণ্টা অবরোধের পর প্রশাসন ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে উত্তেজিত লোকজনকে ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে নেওয়া হয়।

অবরোধকারীদের শান্ত করতে দক্ষিণ সুনামগঞ্জের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আনোয়ারুজ্জামান ঘটনাস্থলে গিয়ে তোপের মুখে পড়েন। পরে দ্রুত স্থান ত্যাগ করেন তিনি।

বিক্ষোভে অংশ নেওয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন তালুকদার জানান, গত ৯ ফেব্রুয়ারি শান্তিগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নের শত্রুমর্দন গ্রামের উজির মিয়া (৪৫) নামে এক ব্যক্তিকে গরু চোর সন্দেহে পুলিশ আটক করে। পরদিন ১০ ফেব্রুয়ারি জামিন লাভ করেন তিনি। তবে পুলিশের মারধরে অসুস্থ হয়ে পড়েন উজির মিয়া। তাকে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সোমবার সেখানে তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় শান্তিগঞ্জ থানার এসআই আলাউদ্দিন, এসআই দেবাশীষ, এসআই পার্ডন কুমার সিংহের বিচারের দাবিতে উজির মিয়ার মরদেহ নিয়ে সড়ক অবরোধ করেন তারা।

মঙ্গলবার (২২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে উজির মিয়ার মরদেহের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়। পরে বিকেল ৩টায় পাগলা হাইস্কুল মাঠে জানাজা শেষে শত্রুমর্দন গ্রামের বাঘেরকোণা পঞ্চায়েত কবরস্থানে তার মরদেহ দাফন করা হয়।