পুলিশের কাছ থেকে ছিনিয়ে নেওয়া সেই আসামিকে যেভাবে গ্রেপ্তার করা হল

0
113
  • পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে ডাকাতির মামলার আসামী ছিনতাইতাই
  • ইছকন্দর আলীর ছেলে আব্দুল হাশিমকে ছিনিয়ে নেয় তাঁর স্বজনরা।
  • সিলেট শহর থেকে যেভাবে গ্রেপ্তার করল পুলিশ।

নিউজ ডেস্ক: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার আশারকান্দি ইউনিয়নের ঐয়ারকোনা গ্রামে পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে ডাকাতির মামলার ছিনিয়ে নেওয়া আসামিকে শুক্রবার সকালে সিলেট শহর থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তার অভিযান পরিচালনাকারী জগন্নাথপুর থানার উপ পরিদর্শক রাজিব রহমান শুক্রবার বিকেলে জানান, গত ১৪ মার্চ পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে ডাকাতি ও ধর্ষণ মামলার গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভূক্ত আসামি ঐয়ারকোনা গ্রামের ইছকন্দর আলীর ছেলে আব্দুল হাশিমকে ছিনিয়ে নেয় তাঁর স্বজনরা। অনেক খোঁজাখুঁজির পর তাকে শুক্রবার সকালে সিলেট শহর থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এর আগে, জগন্নাথপুর থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) শহিদুল ইসলামের নেতৃত্বে তিন পুলিশ সদস্য রোববার (১৪ মার্চ) রাতে উপজেলার আশারকান্দি ইউনিয়নের ঐয়ারকোণা গ্রামের মৃত ইছকন্দর আলীর ছেলে ডাকাতি মামলার গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভুক্ত আসামি আব্দুল হাশিম (৪৫) কে অভিযান চালিয়ে আটক করে নিয়ে আসার সময় আসামির স্বজনরা সংঘবদ্ধ হয়ে পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে হাতকড়া পরিহিত অবস্থায় তাকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এসময় জগন্নাথপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শহিদুল ইসলাম, সহকারী উপ পরিদর্শক (এএসআই) শফিকুল হক ও কনস্টেবল নিয়ামুল ইসলাম আহত হন। তাদেরকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হয়। এ ঘটনায় পুলিশ তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে ঐয়ারকোনা গ্রামের শাহীন আহমেদ (৩২), দিলাল আহমেদ (২৪), মুহিবুর রহমান (২৩), মখদুছ আলী (৩৫) কে ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেপ্তার করে। থানার উপ পরিদর্শক শহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে জগন্নাথপুর থানায় ৫৫ জনের বিরুদ্ধে পুলিশ এসল্ট মামলা দায়ের করেন।

জগন্নাথপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, এ ঘটনায় জড়িত অন্য আসামি গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে।