দুই বছর পর সিলেট শাহী ঈদগাহে হচ্ছে ঈদের জামাত: সময় নির্ধারণ

0
46

নিউজ ডেস্ক:
সিলেটে প্রাণঘাতী করোনার দাপট ছিলো পুরো দুই বছর। ফলে করোনাকালের গত ৪টি ঈদেই সিলেট শাহী ঈদগাহে ছিলো সুনসান নিরবতা। ঈদের দিনগুলোতে মুসল্লিদের বুকে ধারণ করতে না পেরে নিরবে কাঁদছিলো যেন ধর্মীয় অনুভূতি জড়িত সিলেটের ঐতিহ্যবাহী এই ঈদগাহটি।

তবে এবার অবসান হচ্ছে সেই কান্নার। সিলেটসহ সারা দেশে নেই করোনার চোখ রাঙানি। তাই আসন্ন ঈদুল ফিতরের দিনে ঈদগাহ এবং খোলা মাঠে ঈদের জামাত আদায় করতে পারবেন মুসল্লিরা। এ লক্ষ্যে সিলেট শাহী ঈদগাহ প্রস্তুত করার জন্য উদ্যোগ নিয়েছে সিলেট সিটি করপোরেশন এবং ঈদগাহ কমিটি। এ বিষয়ে রবিবার (২৪ এপ্রিল) সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর বাসভবনে তাঁর সঙ্গে ঈদগাহ কমিটির নেতৃবৃন্দের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওই বৈঠকে ঈদুল ফিতরের দিন জামাতের সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সিলেট শাহী ঈদগাহে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল সাড়ে ৮টায়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শাহী ঈদগাহের মোতাওয়াল্লি জহির বক্ত।

শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখাসাপেক্ষে আগামী ২ অথবা ৩ মে অনুষ্ঠিত হবে মুসলিম সম্প্রদায়ের প্রথম বৃহত্তম পবিত্র উৎসব- ঈদুল ফিতর। এ দিনে সকালে নতুন পোশাক পরিধান করে, গায়ে আতর মেখে ও হাতে জায়নামাজ নিয়ে ঈদগাহ ময়দানে ছুটে যাবেন- এটাই চিরাচরিত দৃশ্য। কিন্তু প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের কারণে গত টানা ৪ ঈদে সে দৃশ্য দেখা থেকে বঞ্চিত ছিলো সিলেট শাহী ঈদগাহ। গত ৪টি ঈদেই ধর্মীয় উৎসব আর আমেজ থেকে বঞ্চিত ছিলো সিলেটের ঐতিহ্যবাহী ঈদগাহটি। ছিলো না সেই চিরচেনা কোলাহল আর লাখো মুসল্লির পদচারণা।

তবে গত ঈদুল আযহায় ঈদগাহে নামাজের বিষয়ে সরকারি বিধি-নিষেধ না থাকলেও সিটি করপোরেশন ও ঈদগাহ কমিটির সিদ্ধান্তে শাহী ঈদগাহে হয়নি ঈদের জামাত। তাই চার ঈদ ছিলো সিলেট শাহী ঈদগাহের ছিলো নিরব কান্না। তবে এবার অবসান হতে যাচ্ছে সেই কান্নার।

জানা গেছে, আগের মতো (গত দুই বছর ছাড়া) সিলেট শাহী ঈদগাহ ময়দান প্রস্তুত করার কাজ শুরু করবে সিলেট সিটি করপোরেশন। দু-একদিনের মধ্যেই শ্রমিকরা কাজ শুরু করবেন। মাঠের ঘাস কাটা ও পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন করাসহ বৃষ্টির আশঙ্কায় আগাম প্রস্তুতিমূলক ব্যবস্থা হিসেবে মাঠে ত্রিপল দিয়ে ঢেকে দেওয়া হবে। ঈদের আগে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা মাঠ পরিদর্শন করে সার্বিক প্রস্তুতি সম্পর্কে গণমাধ্যমকে অবগত করবেন।

সব প্রস্তুতি শেষে সিলেট নগরীর সবচেয়ে বড় ঈদের জামাআত অনুষ্ঠিত হবে শাহী ঈদগাহ ময়দানে। সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী, স্থানীয় এমপি ও সিলেটের বর্ষিয়ান রাজনীতিবিদ এবং সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ ব্যক্তিসহ সাধারণ মানুষ ভেদাভেদ ভুলে ঈদের জামাতে শরিক হবেন এই ঈদগাহে। অন্যান্যবারের মতো ঈদের নামাজ শেষে করমর্দন ও কোলাকুলিতে মেতে উঠবেন মুসল্লিরা। সেদিন সেখানে সৃষ্টি হবে ধর্মীয় এক অনন্য আনন্দঘন পরিবেশের।