ঈদ আনন্দ নেই আশ্রয়কেন্দ্রে হবিগঞ্জ বানভাসিদের

0
45

নিউজ ডেস্ক:
ঈদের আনন্দ নেই হবিগঞ্জের বানভাসি মানুষদের। ঘরবাড়ি থেকে পানি নেমে গেলেও এখনো ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে আছে সেগুলো। তাই ঈদের আনন্দের চেয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে দুই বেলা দুমুঠো খাবারের লড়াইয়ে আছেন তারা।

জানা গেছে, জেলার লাখাই, বানিয়াচং, আজমিরীগঞ্জ, নবীগঞ্জ, বাহুবল, সদরসহ ৮ উপজেলায় হঠাৎ বন্যা দেখা দেয়। মুহূর্তে তলিয়ে যায় এসব এলাকার বাড়িঘর ও জমির ফসল।

জেলা প্রশাসন ৩৩৩টি আশ্রয়কেন্দ্র খোলে। প্লাবিত হয় এক হাজার ১৮৩ বর্গ কিলোমিটার এলাকা। আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে ১৫ হাজার ৩৯৯ জন মানুষ অবস্থান করছেন। এ অবস্থায় ঈদের আনন্দ যেন তাদের কাছে স্বপ্নের মতোই।

বানিয়াচং উপজেলার শরীফখানী গ্রামের শাফিউল হক শাফি বলেন, ‘কিছু এলাকা থেকে পানি নামছে। কিন্তু বাড়িগুলো এখনো বসবাসের উপযোগী হয়নি। প্রতিটি ঘরে এখন আবার জ্বর দেখা দিয়েছে।’

শিউলী আক্তার নামের আরেকজন বলেন, ‘বাড়িঘর পানিতে তলিয়ে গেছে। এসব ফেলে পরিবার নিয়ে স্কুলে রয়েছি। আমরা খুব কষ্টে আছি। ঈদ যে করবো, সেই সামর্থ্যও নেই।’

জেলা প্রশাসক ইশরাত জাহান বলেন, ‘বেশ কিছুদিন ধরে সিলেটে বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে হচ্ছে। তবে প্রধানমন্ত্রী বন্যার্তদের পর্যাপ্ত ত্রাণ দিয়েছেন। জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকেও বন্যাকবলিত মানুষের কাছে ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে।’