আজমিরীগঞ্জে নানা শঙ্কা থাকলেও শান্তিতে ভোট সম্পন্ন

0
79

নিউজ ডেস্ক:
আওয়ামী লীগের দলীয়, বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের অংশগ্রহণের কারণে নানা শঙ্কা থাকলেও কোন ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত একটানা চলে ভোটগ্রহণ। প্রতিটি কেন্দ্রেই ভোটারদের উপস্থিতি ছিল চোখে পরার মতো। তবে পুরুষ ভোটারের চেয়ে নারী ভোটারের উপস্থিতি ছিল বেশি।

আজমিরীগঞ্জ সদর, শিবপাশা ও জলসুখা ইউনিয়নের বিভিন্ন ভোটকেন্দ্র ঘুরে দেখা যায়, সকাল ৮টা থেকেই ভোটগ্রহণ শুরু হয়। সকাল থেকেই নারী ভোটারদের ছিল দীর্ঘ লাইন। তবে বেলা বাড়ার সাথে সাথে পুরুষ ভোটারদের উপস্থিতিও বাড়তে থাকে।

এদিকে, ভোট নিয়ে কোন প্রার্থীরও ছিল না কোন অভিযোগ। ভোটের পরিবেশ নিয়ে চেয়ারম্যান, ওয়ার্ড সদস্য ও সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ড সদস্য প্রার্থীরা সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন।

সকাল ১১টার দিকে কথা হয় শিবপাশা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের নুরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের নারী ভোটার সুফিয়া খাতুনের সাথে।

তিনি বলেন, ‘আমরা রান্নাবান্না করেই বোট দিতাম আইছি। বাড়ির বেডাইন ক্ষেত কাম করতে গেছে। কাম থাইক্কা আইয়া বোট দিব।’

একই ইউনিয়নের যশকেশরি সরকারি প্রাথমীক বিদ্যালয় কেন্দ্রে মতিউর রহমান বলেন, ‘এমন ভোট আর কখনো দেখিনি। খুব সুন্দর ভোট হইছে। আমরা চাই এইরকম ভোট সব সময় হইত।’

আজমিরীগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন অফিস সুত্রে জানা যায়, নির্বাচনের সার্বিক নিরাত্তার দায়িত্ব পালন করেন ৮১৬ জন আনসার, ৩১৫ জন পুলিশ, ৫ প্লাটুন র‌্যাব ও ৫ প্লাটুন বিজিবি সদস্য দায়িত্ব পালন করবে। এছাড়াও প্রতি ইউনিয়নে ১জন করে মোট ৫ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করবেন।

উপজেলার ৫ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ দলীয় ও স্বতন্ত্র-বিদ্রোহীসহ চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন ১৬ জন। এর মধ্যে সদর ইউনিয়নে ৩, বদলপুর ইউনিয়নে ৩, জলসুখা ইউনিয়নে ৩, কাকাইলছেও ইউনিয়নে ২ ও শিবপাশা ইউনিয়নে ৫ জন প্রার্থী।

এছাড়াও উপজেলার ৪৫টি সাধারণ ওয়ার্ডে সদস্য (মেম্বার) পদে প্রার্থী হয়েছেন ১৭৪ এবং ১৫টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে প্রার্থী ৬০জন।

উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ৭৪ হাজার ৯শত ৯৪। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৩৭ হাজার ৯শত ১৯ এবং মহিলা ভোটার ৩৭ হাজার ৭৫।