অবেশেষে হালে পিএসজি

0
35

স্পোর্টস ডেস্ক:
হারতে প্রায় ভুলেই গিয়েছিল প্যারিস সেইন্ট জার্মেইঁ। তাদের মনে করানোর দায়িত্বটা নিল নান্তেস। প্রথমার্ধেই তারা দিল তিন গোল। দ্বিতীয়ার্ধে এক গোল দিলেও নেইমার জুনিয়র মিস করলেন পেনাল্টি। আরও একবার গোল করতে ব্যর্থ হলেন মেসি, সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি কিলিয়ান এমবাপেও। সব মিলিয়ে হার নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয়েছে পিএসজিকে।

শনিবার রাতে প্রতিপক্ষের মাঠে ম্যাচটি ৩-১ গোলে হেরেছে মাওরোসিও পচেত্তিনোর দল। লিগ ওয়ানে ১৫ ম্যাচ পর এটি তাদের প্রথম হার। এই মৌসুমে তাদের আগের হারটি রেনের বিপক্ষে। তাদের মাঠে ২-০ গোলে হেরেছিল পিএসজি। নান্তেসের সঙ্গে সর্বশেষ দেখায় মেসির গোলে ৩-১ ব্যবধানের জয় পেয়েছিল পিএসজি।

নান্তেসেরে বিপক্ষে ম্যাচের প্রথম সুযোগটি পেয়েছিল পিএসজি। হুয়ান বের্নাতের শট এগিয়ে এসে আটকে দেন গোলরক্ষক আলবা লাফু। এক মিনিট পরই এগিয়ে যায় নান্তেস। পাল্টা আক্রমণে সতীর্থের পাসে ডি-বক্সে কোলো মুয়ানির শট কেইলর নাভাসের দুই পায়ের ফাঁক দিয়ে জালে জড়ায়।

৫ মিনিট পর মেসির শট দারুণ দক্ষতায় ঠেকিয়ে দেন লাফু। ১৬তম মিনিটে দ্বিতীয় গোল পেয়ে যায় নান্তেস। ডি-বক্সে সতীর্থের পাস পেয়ে মেরলিনের শট দূরের পোস্টের ওপরের কোণা দিয়ে জালে জড়ায়। খানিক বাদে আরও দুটি দারুণ সেভ করেন নান্তেস গোলরক্ষক লাফু।

৪৪তম মিনিটে ১০ জনের দল হয়ে পড়েছিল নান্তেস। তবে ওই যাত্রায় তারা রক্ষা পায় ভিএআরে। এমবাপেকে পেছনে টেনে ধরায় নান্তেস ডিফেন্ডার ডেনিস লাল কার্ড দেখেন, ভিএআরে সেটা বদলে হয় হলুদ কার্ড।

প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে সফল স্পট কিকে স্কোরলাইন ৩-০ করেন লুদোভিচ ব্লাস। ডি বক্সের ভেতরে জর্জিনিও উইজানাল্ডমের হাতে বল লাগলে পেনাল্টি পায় নান্তেস।

 

দ্বিতীয়ার্ধের দ্বিতীয় মিনিটে গোল করে পিএসজিকে কিছুটা স্বস্তি এনে দেন নেইমার। মেসির দারুণ পাস ডি-বক্সে পেয়ে এক ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে গোলটি করেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড। ৫৭তম মিনিটে ফের এগিয়ে যাওয়ার দারুণ সুযোগ আসে পিএসজির সামনে।

প্রতিপক্ষের ডি-বক্সে এমবাপে ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টি পায় পিএসজি। কিন্তু নেইমারের দুর্বল স্পট কিক সহজেই ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক। শেষদিকে আরও কিছু সহজ সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি এমবাপে-মেসি। হারের তেঁতো স্বাদ নিয়ে মাঠ ছেড়ে যেতে হয় পিএসজিকে।

নান্তেসের বিপক্ষে ম্যাচটি ছিল মেসির ক্লাব ক্যারিয়ারের ৮০০তম ম্যাচ। উপলক্ষটা রাঙাতে পারেননি আর্জেন্টাইন তারকা। তবে লিগ টেবিলে এখনও শীর্ষেই আছে পিএসজি। ২৫ ম্যাচে ৫৯ পয়েন্ট তাদের। এক ম্যাচ কম খেলে ৪৬ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে মার্শেই।