অজুর সময় গলায় পানি গেলে রোজা ভেঙে যাবে কি?

0
22

ধর্ম ডেস্ক:
রমজানে আমি একদিন দিনের বেলা রোজার কথা ভুলে গিয়ে ওযুর সময় স্বাভাবিকভাবে গড়গড়া করে কুলি করছিলাম। তখন গলার ভেতরে অল্প পানি চলে যায়।

এখন জানতে চাই, আমার কি ওই দিনের রোজা ভেঙে গিয়েছে? যদি ভেঙে গিয়ে থাকে তাহলে কি আমার ওপর ওই দিনের কাজা-কাফফারা উভয়টি আবশ্যক হবে, নাকি শুধু ওই দিনের রোজার কাজা আদায় করতে হবে?

এই প্রশ্নের উত্তর হলো- প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে যেহেতু আপনার রোজার কথা স্মরণ ছিল না, তাই গড়গড়া করে ওযু করার সময় গলার ভেতরে পানি চলে যাওয়াতে আপনার রোজা ভাঙেনি। সুতরাং আপনাকে ওই দিনের রোজার কাজা-কাফফারা কোনোটিই আদায় করতে হবে না।

ভুলে পানাহার করলেও রোজা ভাঙে না

এছাড়াও আরও জেনে রাখা দরকার যে, ভুলে পানাহার করলে রোজা ভাঙে না। আর কেউ যদি ঘুমে পানাহার করে— তাহলে তো রোজা ভাঙার প্রশ্নই উঠে না।

আবু হুরাইরা (রা.) থেকে বর্ণিত হাদিসে আল্লাহর রাসুল (সা.) বলেন, ‘যে ব্যক্তি ভুলে আহার করল বা পান করল; সে যেন তার রোজা পূর্ণ করে। কারণ, আল্লাহই তাকে পানাহার করিয়েছেন।’ (সহিহ মুসলিম, হাদিস : ১/২০২)

আবু হুরাইরা (রা.) থেকে বর্ণিত আরেকটি হাদিসে আছে, ‘যে রমজান মাসে ভুলে পানাহার করল, তার ওপর কোনো কাজা নেই; কোনো কাফফারাও নেই।’ (ইবনে হিব্বান, হাদিস : ০৮/২৮৮; হাকিম, হাদিস : ০১/৪৩০; সাহিহুল জামি, হাদিস : ৬০৭০)
আরও পড়ুন : কারও বদলি রোজা রাখা কি জায়েজ?

ফিকহের কিতাবে রয়েছে যে, পানাহার ও স্ত্রী সহবাস করলে রোজা ভেঙে যায়; যদি রোজাদারের এ কথা মনে থাকে যে; সে রোজা রেখেছে। সুতরাং কেউ যদি রোজার কথা ভুলে গিয়ে পানাহার ও সঙ্গম করে, তবে তার রোজা ভাঙবে না। অবশ্য, স্মরণ হওয়ার সাথে সাথে তা থেকে বিরত থাকতে হব। (রদ্দুল মুহতার, খণ্ড : ০৩, পৃষ্ঠা : ৩৬৫)

তথ্যসূত্র : মুসান্নাফে ইবনে আবি শাইবা, বর্ণনা : ৯৫৮০; কিতাবুল আছল : ২/১৫০; বাদায়িউস সানায়ি : ২/২৩৮; ফাতাওয়া তাতারখানিয়া : ৩/৩৭৮; ফাতাওয়া হিন্দিয়া : ১/২০২; রদ্দুল মুহতার : ২/৪০১